নায়িকারা হেরে যাওয়ায় 'নটী' বললেন বিজেপি নেতা, নুসরাতের প্রতিবাদ

সদ্য শেষ হওয়া পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভার নির্বাচনের রেশ কাটছেই না। বিজেপি যেন মানতেই পারছে না তৃণমূল কংগ্রেসের কাছে আবারও রাজ্য হারাবে তারা৷ জয় পেতে কি না করেছিলো গেরুয়া শিবির৷

দলে এনেছিলো তারকা সব প্রার্থী৷ প্রচারণা চলেছিলো কাড়ি কাড়ি টাকা খরচ করে৷ কিছুতেই কিছু হলো না৷ ভরাডুবি হলো ভোটের বাক্সে৷ হেরে বসেছেন শ্রাবন্তী, পায়েল, রুদ্রনীলের মতো তারকারা৷

তারকাদের এই পরাজয় মেনে নিতে পারছেন না বিজেপির অনেক নেতাকর্মী। বিশেষ করে টলিউডের অভিনেত্রী বিজেপি তারকা প্রার্থী তনুশ্রী চক্রবর্তী, পায়েল সরকার এবং শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়কে টিকিট দেওয়া নিয়ে অনেক সমালোচনা চলছে৷ এদিকে এই নায়িকাদের ‘নগরের নটী’ বলে সম্বোধন করেছেন বিজেপি নেতা তথাগত রায়৷ টুইটারে এক স্ট্যাটাসে তিনি এ কথা লেখেন।

মেঘালয়ের রাজ্যপালে তথাগত তার টুইটে লিখেছেন, 'পায়েল শ্রাবন্তী পার্নো ইত্যাদি ‘নগরীর নটীরা’ নির্বাচনের টাকা নিয়ে কেলি করে বেড়িয়েছেন আর মদন মিত্রর সঙ্গে নৌকাবিলাসে গিয়ে সেলফি তুলেছেন (এবং হেরে ভূত হয়েছেন) তাঁদেরকে টিকিট দিয়েছিল কে? কেনই বা দিয়েছিল? দিলীপ-কৈলাশ-শিবপ্রকাশ-অরবিন্দ প্রভুরা একটু আলোকপাত করবেন কি?'

সেই টুইটের বিরুদ্ধে কড়া জবাব দিলেন অভিনেত্রী সাংসদ নুসরাত জাহান। এই প্রসঙ্গে তনুশ্রী, পায়েল এবং শ্রাবন্তী কোনো প্রতিক্রিয়া দিতে রাজি না হলেও এগিয়ে এলেন নুসরাত। তিনি আনন্দবাজার ডিজিটালকে বললেন, 'আমি বরাবরই বলে এসেছি বিজেপি নারীর প্রধান শত্রু। এই দল কখনোই নারীকে সম্মান করতে পারেনি, পারবেও না। মেয়েদের ওরা এ ভাবেই দেখে। তাদের যে সম্মান করা উচিৎ, সেই শিক্ষাটাই ওদের মধ্যে নেই। সেই জন্যই যোগী আদিত্যনাথ পশ্চিমবঙ্গে রোমিও স্কোয়াডের কথা বলতে পেরেছিলেন।'

এই বিজেপিকেই সমূলে উৎখাত করতে ২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনীর প্রচারে গিয়েছেন নুসরাত। প্রার্থী না হয়েও চষে বেরিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন এলাকা। নুসরত এ প্রসঙ্গে আনন্দবাজার ডিজিটালকে বললেন, 'বাংলার মানুষ জানে বিজেপি কেমন। নির্বাচনের ফলই তার প্রমাণ। তবে বাংলার মহিলারা বিজেপিকে ব্যালট বাক্সে যা জবাব দেওয়ার দিয়ে দিয়েছে। বিজেপি-তে যোগ দিয়ে নিজেকে লজ্জিত করার কোনো মানেই হয় না।'

গত জানুয়ারি মাসে বিজেপি-র বিরুদ্ধে এক প্রতিবাদ সভায় মেয়েদের প্রতি অন্যায় আচরণের বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলেছিলেন নুসরাত। কড়া ভাষায় জানিয়েছিলেন, বাংলার মেয়েদের ভয় দেখিয়ে দমন করা সম্ভব নয়। এর পরেও একাধিকবার একই সুর শোনা গিয়েছে তার গলায়। প্রচারেও বারবার মহিলাদের প্রতি বিজেপির আচরণকে তিরস্কার করেছেন তিনি।

এর আগেও তথাগত নারীদের নিয়ে কটুক্তি করে তুমুল সমালোচনার শিকার হন৷ তার বিরুদ্ধে পশ্চিমঙ্গের বিভিন্ন এলাকার নারীরা আন্দোলনেও নেমেছিলেন৷

এলএ/এএসএম

সর্বশেষ সংবাদ