করোনার সরকারি প্রণোদনা নিয়েও দুর্নীতি হচ্ছে : মির্জা ফখরুল

করোনা মহামারিতে সরকারি প্রণোদনা নিয়েও দুর্নীতি হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, করোনায় যে প্রণোদনা দেওয়া হয়েছে তাতেও পুরোপুরিভাবে দুর্নীতির আশ্রয় নেওয়া হয়েছে। 

বুধবার (৫ মে) বিকেলে করোনা রোগীদের স্বাস্থ্যসেবা দিতে জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশনে তৈরি ‘জেডআরএফ ট্রিটমেন্ট অ্যাপস’ এর উদ্বোধন উপলক্ষে এক ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন। করোনাভাইরাসে সংক্রমিত রোগীদের চিকিৎসার জন্য অ্যাপটি জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রয়াত সভাপতি শফিউল বারী বাবুকে উৎসর্গ করা হয়। অনুষ্ঠানে লন্ডন থেকে ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ভিডিও বার্তা প্রচার করা হয়।

বর্তমান সরকার সম্পূর্ণভাবে জনবিচ্ছিন্ন দাবি করে মির্জা ফখরুল বলেন, যেহেতু তারা জনগণের ভোটে নির্বাচিত না তাই তাদের কোনো জবাবদিহিতাও নেই। সেজন্য মানুষের জীবন-জীবিকার প্রশ্নেও তাদের কোনো দায়িত্ববোধ নাই। দায়িত্বহীনতার কারণে, জবাবহীনতার কারণে আজ গোটা জাতি চরম বিপদের মুখে।

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার ব্যর্থ উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, মহামারি শুরুর পর থেকেই সরকারের চরম অযোগ্যতা ও অজ্ঞানতা এই ভাইরাসকে নিয়ন্ত্রণের বাইরে ঠেলে দিয়েছে। দুর্ভাগ্যজনকভাবে আমাদের এখানে করোনা চিকিৎসার জন্যে সরকারের তরফ থেকে ওই ধরনের কোনো ব্যবস্থাই নেওয়া হয়নি।

মির্জা ফখরুল বলেন, করোনা টেস্টে নিয়ে সরকার মিথ্যাচার করছে। অন্যদিকে চিকিৎসার ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ ভ্রষ্টাচার করছে। দুর্নীতি করে তারা দেশটাকে চরম বিপদে ফেলে দিয়েছে। আমরা কিছুদিন আগে দেখলাম যে, দুটো হাসপাতাল উধাও। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে যে হারে দুর্নীতি হচ্ছে, তাতে তারা দুর্নীতির পাহাড় গড়ে তুলেছে। স্বাস্থ্য খাত ভেঙে পড়েছে। চরম ভঙ্গুর এই স্বাস্থ্যখাত সরকার তৈরি করেছে। সরকারের ব্যর্থতা-অযোগ্যতায় গোটা জাতি আজ বিপদের সম্মুখীন।

করোনা মহামারির মতো সংকট গণতান্ত্রিক সরকার ছাড়া মোকাবিলা করা সম্ভব নয় উল্লেখ করে বিএনপির মহাসচিব বলেন, সেজন্য সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থা তৈরি করা। গণতান্ত্রিক সরকার তৈরি করা, গণতান্ত্রিক পার্লামেন্ট ব্যবস্থা চালু করা। যেখানে জবাবদিহিতা থাকবে, জনগণের প্রতি দায়িত্ববোধ থাকবে।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সুস্থতার জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, আমাদের দেশনেত্রী অত্যন্ত অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে আছেন। আসুন আমরা সবাই মিলে, তার রোগমুক্তির জন্য আন্তরিকতার সঙ্গে দোয়া করি।

ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক অধ্যাপক ফরহাদ হালিম ডোনারের সভাপতিত্বে ও সৈয়দ ইমতিয়াজ উদ্দিন সাজিদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে যুক্ত ছিলেন অধ্যাপক আখতার হোসেন, এবিএম ওবায়দুল ইসলাম, অধ্যাপক মোরশেদ হাসান খান, ডা. শাহ মুহাম্মদ আমানউল্লাহ ও অধ্যাপক আবদুল করীম প্রমুখ।

এএইচআর/ওএফ

সর্বশেষ সংবাদ