‘গণতান্ত্রিক সরকার ছাড়া মহামারি মোকাবিলা সম্ভব নয়’

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: গণতান্ত্রিক সরকার ছাড়া মহামারি মোকাবিলা সম্ভব নয় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বিজ্ঞাপন

বুধবার (৫ মে) বিকেলে এক ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে তিনি এ মন্তব্য করেন। করোনা রোগীদের স্বাস্থ্যসেবা দিতে জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশনের তৈরি ‘অ্যাপস’উদ্বোধন উপলক্ষে এই ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘করোনা মহামারির মতো এরকম সংকট গণতান্ত্রিক সরকার ছাড়া মোকাবিলা করা সম্ভব নয়। সেজন্য আমাদের সবচেয়ে বড় প্রয়োজন একটা গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থা কায়েম করা, গণতান্ত্রিক একটা সরকার প্রতিষ্ঠা, গণতান্ত্রিক একটা পার্লামেন্ট গঠন করা- যেথানে জবাবদিহিতা থাকবে, জনগণের প্রতি দায়িত্ববোধ থাকবে, মানুষের সাথে সম্পর্ক থাকবে।’

বিজ্ঞাপন

করোনা মহামারির সরকারি প্রণোদনায়ও দুর্নীতি হচ্ছে- অভিযোগ করে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘করোনায় যে প্রণোদনা দেওয়া হয়েছে সেখানেও পুরোপুরিভাবে দুর্নীতির আশ্রয় নেওয়া হয়েছে। এই সরকার সম্পূর্ণভাবে জনবিচ্ছিন্ন একটি সরকার। যেহেতু তাদের কোনো জবাবদিহিতা নেই, সেজন্য মানুষের জীবন-জীবিকার প্রশ্নেও তাদের কোনো দায়িত্ববোধ নেই। সেই দায়িত্বহীনতার কারণে, জবাবহীনতার কারণে আজ গোটা জাতিকে চরম বিপদের মুখে ঠেলে দেওয়া হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘প্রকৃতপক্ষে মহামারি শুরু হওয়ার পর থেকে সরকারের চরম অযোগ্যতা ও অজ্ঞানতা এই করোনাভাইরাসকে নিয়ন্ত্রণের বাইরে ঠেলে দিয়েছে। দুর্ভাগ্যজনকভাবে আমাদের এখানে কারোনা চিকিৎসার জন্যে সরকারের তরফ থেকে সে ধরনের কোনো ব্যবস্থাই গ্রহণ করা হয়নি।’ বিজ্ঞাপন

ফখরুল বলেন, ‘একদিকে করোনা টেস্টে মিথ্যাচার, অন্যদিকে চিকিৎসার ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ ভ্রষ্টাচার করে, দুর্নীতি করে তারা দেশকে চরম বিপদের মধ্যে ফেলে দিয়েছে। আমরা কিছুদিন আগে দেখলাম, দুইটা হাসপাতাল উধাও হয়ে গেছে এবং স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে যে হারে দুর্নীতি হচ্ছে, তাতে তারা দুর্নীতির পাহাড় গড়ে তুলেছে। স্বাস্থ্য খাত ভেঙে পড়েছে। চরম ভঙ্গুর একটা স্বাস্থ্যখাত এই সরকার তৈরি করেছে। সরকারের ব্যর্থতা-অযোগ্যতায় গোটা জাতি আজ বিপদের সম্মুখীন।’

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অসুস্থতার জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়ে তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া যিনি অত্যন্ত অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে আছেন। আসুন আমরা সবাই মিলে, আন্তরিকতার সঙ্গে দোয়া করি তার আশু রোগমুক্তির জন্য।’ বিজ্ঞাপন

ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক অধ্যাপক ফরহাদ হালিম ডোনারের সভাপতিত্বে ও সৈয়দ ইমতিয়াজ উদ্দিন সাজিদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বেচ্ছাসেবক দলের মোস্তাফিজুর রহমান, ছাত্রদলের ফজলুর রহমান খোকন, ইকবাল হোসেন শ্যামল, ডা. আশরাফুল হাসান মানিক প্রমুখ বক্তব্য দেন।

অনুষ্ঠানে অধ্যাপক আখতার হোসেন, এবিএম ওবায়দুল ইসলাম, অধ্যাপক মোরশেদ হাসান খান, ডা. শাহ মুহাম্মদ আমানউল্লাহ, অধ্যাপক আবদুল করীম, অধ্যাপক হারুন আল রশিদ, এএস হায়দার পারভেজ, মীর হেলাল উদ্দিন, যুবদলের সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু, স্বেচ্ছাসেবক দলের আবদুল কাদির ভুঁইয়া ‍জুয়েল, বিথীকা বিনতে হোসাইন, গোলাম সারোয়ার, সাদরেজ জামানসহ মহানগর বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল ও ড্যাবের সদস্যরা অংশ নেন।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এজেড/পিটিএম

সর্বশেষ সংবাদ