উত্তর বারিধারাকে হারিয়ে জয় তুলে নিল বসুন্ধরা

হারনান বার্কোসকে হারিয়ে হতাশই হয়ে পড়েছিলেন বসুন্ধরা কিংসের কর্মকর্তারা। তার বিকল্প হচ্ছিল না মন মতো। বার্কোসেরই স্বদেশী আরেক আর্জেন্টাইন অস্কার রাউল বেচেরাকে আনা হলো। শারীরিক উচ্চতায় বার্কোসেরই সমান বেচেরা। আর ফেডারেশন কাপ এবং লিগ মিলে টানা ছয় ম্যাচে গোল করে দীর্ঘদেহী বেচেরাও নিজের অপরিহার্যতা প্রমাণ করেই চলেছেন। দেশ সেরা ক্লাবের মতোই খেলছে বসুন্ধরা। জয় প্রতি ম্যাচেই। আর দলের ম্যাচ মানে বেচেরার গোল। গতকাল এই আজেন্টাইন এবং বাংলাদেশী মোহাম্মদ ইব্রাহিমের সমন্বয়ে জয়ে ২০২০-২১ মওসুমের লিগ শুরু ফেডারেশন কাপ চ্যাম্পিয়নদের। ২-০তে উত্তর বারিধারাকে হারিয়ে

জয়ের ধারাতেই অস্কার ব্রুজনের দলের।

চার দিন আগে (১০ জানুয়ারি) সাইফ স্পোর্টিংকে হারিয়ে ফেডারেশন কাপ জয় বসুন্ধরা কিংসের। সেই দলের দুই ফুটবলার মাশুক মিয়া জনি এবং মতিন মিয়াকে রিজার্ভ বেঞ্চে রেখে সুফিল এবং ইব্রাহিমকে নিয়ে একাদশ গঠন দলটির। তবে ফেডারেশন কাপের কোয়ার্টার ফাইনালে আবাহনীকে ৯৪ মিনিট পর্যন্ত ঠেকিয়ে রাখা বারিধারা কাল বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে ৩৪ মিনিট পর্যন্ত অক্ষত রাখতে পেরেছিল নিজেদের পোস্ট। এরপরই রণেভঙ্গ শেখ জাহিদুর রহমান মিলনের দলের। অবশ্য তাদের মিসরীয় মিডফিল্ডার মোস্তফা মাহমুদের যোগ্য সহযোগী না থাকায় দলটি গোলের সুযোগ তৈরী করতে পারেনি। অবশ্য কোচ মিলন এ জন্য নিজেদের প্রস্তুতির ঘাটতি এবং

তার দলের শক্তির তুলনায় এগিয়ে রাখলেন বসুন্ধরা কিংসকেই।

১৬ মিনিটে বেচেরার হেড ক্রস বারে প্রতিহত হলেও ৩৫ মিনিটে আর হতাশা নয়। বিশ্বনাথের ক্রসে উজবেক ডিফেন্ডার ফাজিলভের মাথা ছুঁয়ে চলে আসে বেচেরার কাছে। তাতে তার ড্রপ হেড বোকা বানায় মামুন আলিফকে। ৫৫ মিনিটে বিপক্ষ ডিফেন্ডারের কাছ থেকে বল কেড়ে প্লেসিং শটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন ইব্রাহিম। ইনজুরি টাইমে মতিন মিয়া একা থাকা আলিফকে পরাস্ত করতে না পারায় ২-০ই থাকে স্কোর লাইন।

সর্বশেষ সংবাদ